写真

আজ ঈদ কিনা এটা নিশ্চিত হতে হলে কারও কাছে জানতে চাইতে হবে। ঈদগাহে কোনো জামাত নেই। অল্প কিছু মানুষ মসজিদে গেছেন ঈদের নামাজ পড়তে। তারাও নামাজ শেষে ঈদের সেই চিরচেনা কোলাকুলি আর হাত মেলাননি। একত্রিত হয়েও যেন আমরা পরস্পর থেকে বিচ্ছিন্ন। সারা দিন বাসায় কোনো অতিথি নেই, কেউ কাওকে দেখতে কারও বাসায় যাচ্ছেন না। উদযাপনের পরিসর ছোট হতে হতে নিজের ঘর আর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সীমাবদ্ধ হয়ে গেছে।

বাচ্চারা ঈদের চাঁদ দেখতে দৌড়ে বাসার ছাদে যায়নি। কোনো হইহুল্লোড় নেই, আতশবাজি নেই, উচ্চস্বরে হর্নের শব্দ নেই, এমনকি বাইরে উদযাপনের কোনো আয়োজনও নেই। বাইরে সব কিছু শান্ত, চারিদিক নিস্তব্ধ। ভিতরে, করোনায় ঘরবন্দি মানবের কাটানো আরও একটা দিন।

ঈদ আমাদের জীবন, অর্থনীতি ও সংস্কৃতিতে এতটাই প্রভাব ফেলে যে, এই দিনটার উপলক্ষে সব কিছুই বদলে যায়। দুই ঈদ আর পহেলা বৈশাখে যে ব্যবসা হয় তা দিয়েই দেশের ব্যবসায়ীরা সারা বছর চলার রসদ পেয়ে থাকেন। দুঃখের বিষয়, এই মহামারির মধ্যে পড়ে গেছে পহেলা বৈশাখ এবং ঈদুল ফিতর
বেইজিং ভিত্তিক গবেষণা সংস্থা সেন্টার ফর চায়না অ্যান্ড গ্লোবালাইজেশনের প্রেসিডেন্ট ওয়াং হুহাইওর মতে, ১৯৭৯ সালে দুই দেশের মধ্যে পুরোমাত্রায় কূটনৈতিক সম্পর্ক প্রতিষ্ঠান পর পারস্পরিক অবিশ্বাস এত খারাপ কখনো হয়নি।

যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক বেসরকারি সংস্থা এশিয়া সোসাইটির মার্কিন-চীন সেন্টারের পরিচালক অরভিল শেল বিজনেস ইনসাইডার পত্রিকাকে বলেন, “আমরা একটি শীতল যুদ্ধের দ্বারপ্রান্তে।“

হংকংয়ের ব্যাপটিস্ট ইউনিভার্সিটির রাজনীতির অধ্যাপক জ্যঁ পিয়ের সেবাস্টিয়ান লন্ডনের ফিনানশিয়াল টাইমস পত্রিকাকে বলেছেন, “যুক্তরাষ্ট্র এবং চীন নতুন এক ধরণের শীতল যুদ্ধের মুখোমুখি হয়েছে।“
ভারতের মেঘালয় রাজ্যে অতিবৃষ্টিতে সিলেটের উত্তরের উপজেলা গোয়াইনঘাটের সারি, পিয়াইন ও গোয়াইন নদীতে পানি বেড়ে প্লাবিত হয়েছে বিস্তীর্ণ নিম্নাঞ্চল।

২৫টি গ্রাম ও প্রধান সংযোগ সড়ক প্লাবিত হয়ে উপজেলার সঙ্গে অন্যান্য উপজেলার যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। এ ছাড়া অসংখ্য বাড়িঘর ও আউশ ধানের বীজতলা ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার কথা জানিয়েছে উপজেলা প্রশাসন।

পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) এর উপসহকারী প্রকৌশলী মো. জহিরুল ইসলাম সরকার জানান, ‘পাহাড়ি ঢলে সারি নদীর পানি বিপৎসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। পিয়াইন ও গোয়াইন নদীর পানিও সারাদিন বেড়েছে। সীমান্তের ওপার মেঘালয়ে বৃষ্টিপাত বাড়লে স্থায়ী বন্যা পরিস্থিতি তৈরি হবে।’

পাউবোর সারিঘাট গেজ স্টেশনের তথ্য অনুযায়ী সারি নদীর পানি মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৬টায় বিপৎসীমার ৬৮ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে যা সকাল ৬টায় ৩ সেন্টিমিটার উপরে ছিল। এ নদীতে নিরাপদ জলস্তরের সীমা ১১ দশমিক ৭৭ মিটার।
The giants of the sea, all but gone?
In search of stories of a fish soaked in myth and magic, and uncovering other ocean mysteries along the way
Abida Rahman ChowdhuryMay 18, 2020


A ray is being processed. Photo:Fayed Masud Khan
When we get there at the break of dawn, Cox's Bazar is asleep and unexpectedly cold. Pinching at our cheek, making everyone scrunch up their noses. But reassurances drop in from right and left that the coast is rarely ever cold, for a long stretch anyway.

It proves true soon enough. Just as we enter Ground Zero of marine biologist Alifa Bintha Haque's study area, the mercury starts climbing.

The very broken and expansive Bangladesh Fisheries Development Corporation (BFDC) approved landing site for fish caught from the Bay of Bengal looms large and menacing. The open market stands just at the mouth of the Baghkhali River leading to the ocean. Alifa and her team of young researchers get to work immediately.

They plan to collect monthly data on landings of sharks and rays (elasmobranchs) caught by fishing vessels who spent countless days in the high seas.


Fins, tails and other parts of sharks being dried over a machan by the sea. Photo: Alifa B Haque
It does not take long for the research team--Mahi, Nidhi, Nazia and Shawon and many others who haven't been named here--to get down and dirty. On the sprawling dirt-stained mosaic floor, fishers haul in the day's catch. The smell of blood, fish guts, burnt mobil and kerosene, betel leaf spittle and Hollywood cigarettes hang heavy in the air. An hour and the stench is everywhere. Hair, nostrils, at the base of your throat and through the mesh of your scarf. But nothing deters this bunch. The team divides into two and sloshes through the sea of blood and slime. One in search of sharks--pig eye, bull, tiger, hammerhead, spot tail, whale and spadenose sharks. The other looks for rays- blue-spotted, spotted eagle, whip, spinetail and longtail butterfly, among others

動画

Amin
03:38

ブログ