写真

ছবিটিতে আমাকে দেখতে পাচ্ছি খুব সুন্দর ভাবে দই-মিষ্টি এবং বিভিন্ন প্রকার কেক তৈরি করার কারখানা যেখানে খুব সুন্দর ভাবে আমি আপনাদের দেখাবো কিভাবে কেক তৈরি করে এবং দই তৈরি করে এগুলো আমরা বিভিন্ন রেস্টুরেন্টে যাবো বিভিন্ন অনুষ্ঠানের জন্য এখান থেকে কিনতে পারব সাতক্ষীরা শহরের উপরে দোকানকে অবস্থিত সবসময় এখানে মালামালের পরিপূর্ণ করে রাখেন এবং নিজস্ব খামারে খুব সুন্দর ভাবে দুধ এনে এখানে বিভিন্ন প্রকার মিষ্টান্ন বানিয়ে থাকেন এই রেষ্টুরেন্টের সকল প্রকারের কেক তৈরি করা যায় কারণ এখানে নির্দিষ্ট মেশিনে খুব সুন্দর ভাবে বিভিন্ন জন্মদিন অনুষ্ঠান সহ অনেক ধরনের অনুষ্ঠানের এবং ছোট বাচ্চাদের কেক এখান থেকে বিক্রি করা হয়  দই খুব সুন্দর একটি সুন্দর সুস্বাদু খাবার যদি খাবার জন্য অনেক দূর দূরান্ত থেকে মানুষজন আছে এবং কেনার জন্য আসে সবসময় মানুষজন এখন ভালো জিনিস কেনার জন্য একটু টাইম লাগলে কোন দাম বেশি হলেও সব সময় এই সাতক্ষীরা জেলার ঐতিহ্যবাহী মিষ্টান্ন ভান্ডার আসে
ছবিতে আমি আপনাদেরকে ঢাকা শহরের একটি ছবি তুলে দেখতেছি এবং সৌন্দর্যে ঘেরা এই ঢাকা শহরের রাত্রের ব্রিজ গুলা ঢাকা শহরে এদিকে-ওদিকে আনাগোনা অনেক ধরনের ব্রিজ রয়েছে তার ভিতরে অন্যতম যে এই দেশগুলো লাইটিং করা রয়েছে যার তলা দিয়ে ওপরে দিয়ে বিভিন্ন প্রকার পরিবহন মোটরসাইকেল চলাচল করে একাধারে এক ধরনের কালার এবং রাত্রেবেলা যখন একসাথে আলোগুলো জ্বলে ওঠে পুরো ঢাকা শহরে আলোকিত হয়ে যায় অনেক সুন্দর চোখের ও পরিবেশ মনমুগ্ধকর এবং হালকা ঠাণ্ডা অনেক দেশ থেকে মানুষজন সন্ধ্যার পর থেকে এই ব্রিজের উপরে এসে আকর্ষণীয়ভাবে দেখে ব্রিজের উপরে তাকালে দেখা যায় বিভিন্ন প্রকার বিল্ডিং এবং বিভিন্ন নদী আরো অনেক কিছু বিভিন্ন প্রকার গাড়ি চলাচল করে এই ব্রিজের উপর দিয়ে ওভারব্রিজ দিয়ে উপরে দিয়ে মোটরসাইকেল বর্তমান সময়ে ঘেরা থাকে মানুষের
ছবিতে আমি আপনাদেরকে একটি মুদির দোকানের যাবতীয় মাল সম্পর্কে বলব যেটি খুব জনপ্রিয় একটি দোকান সাতক্ষীরা শহরের উপরে দোকান তে অবস্থিত সকল প্রকার মালামাল নিত্য প্রয়োজনীয় মালামাল চাউল ডাটা বিভিন্ন প্রকার মসলা পাওয়া যায় খুব সুন্দর ভাবে দোকানটা সাজানো-গোছানো সকল প্রকার বিস্কুট পাউরুটি বাচ্চাদের খাবারে দোকানটি বিক্রি করা হয় হর্স উন্নত কোম্পানির মাল আওয়ালে দোকানে বিক্রি করেন বলে কেউ অন্য জায়গা থেকে কেনে না দোকানটি সবসময় পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকে এবং কাস্টমারের পরিপূর্ণ যাকে বলে এজন্য অনেক দূর দূরান্ত মাজেদুল সহজ এবং কয়েকজন কর্মচারী রাখা রয়েছে কিছু দক্ষভাবে এখানে মালামাল তারা বিক্রি করে থাকেন
খুবই সুন্দর হয়েছে জন্মদিনের অনুষ্ঠানে আমরা আজ অতিথি হিসেবে দাওয়াত পেয়েছি এটি আমাদের খুলনা জেলার ঐতিহ্যবাহী ব্যবসায়ী রহিম সাহেবের বাড়িতে খুব সুন্দরভাবে প্রতিবছরের ন্যায় তিনি বিভিন্ন ধরনের অনুষ্ঠান করে থাকেন তার ভিতরে তার মেয়ের জন্মদিন উপলক্ষে খুব সুন্দর ভাবে অনুষ্ঠানটিতে নিয়ে উদযাপন করেন অনেক ব্যবসায়ী ভাইদের কে দাওয়াত দিয়ে থাকেন তার জন্মদিনের অনুষ্ঠানে এখানে আপনি দেখতে পাচ্ছেন তার জন্মদিনের অনুষ্ঠান উপলক্ষে খুলনা জেলার ঐতিহ্যবাহী রেস্টুরেন্ট থেকে কেকের অর্ডার দেওয়া হয়েছে একটি বাড়ি নিয়ে গেছে এবং কেকটি এত সুন্দর ভাবে তৈরি করা মনমুগ্ধকর দেখতে এবং খেতে অনেক সুন্দর সুস্বাদু লাগছে একটু পরে তার জন্মদিনের কেক কাটা হয়েছে এবং সবাই একসাথে মিলে আমরা খাওয়া-দাওয়া করছি শুধু কেদোনা এখানে প্রায় 50 থেকে 70 জন মানুষের দাওয়াত দিয়েছেন আমাদের রহিম সাহেব প্রতিবছর না এভাবে তার ফ্যামিলি সহ প্রায় 100 জনের উপরে মানুষের আয়োজন করা হয় তার বাড়িতে এখানে বিভিন্ন প্রকার খাওয়া-দাওয়া হয় বিরিয়ানি গরুর মাংস আরো অনেক কিছু খাওয়া হয় এখানে
সড়কের উপরে বিভিন্ন প্রকার যানবাহন চলাচল করছে এবং এখান থেকে সাতক্ষীরা জেলার সব সময় মানুষ চলাচল করে  সময় আমরা দেখে থাকি যে যানজট লেগে যায় একসাথে অনেক গাড়ি আসে যাওয়ার কারণে এবং রড ক্রস করার কারণে বিভিন্ন ধরনের দুর্যোগের কারণে মানুষের দুর্ভোগ এজন্য ফুটপাত করে দেওয়া হয়েছে কিন্তু সাতক্ষীরা জেলার খুব সুন্দর একটি সড়ক মানুষ কম সময়ে এই সড়ক দিয়ে চলাচল করে তাদের গন্তব্যস্থলে পৌঁছাতে পারে এজন্য স সবকি খুব সুন্দর পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসকের আয়োজনে এ সড়কটি খুব দ্রুততার সাথে সুন্দর করা হয়েছে এবং এখানে দেখতে পাচ্ছেন মাইক্রো গাড়ি চলাচল করছে এখানে সময় এই সড়কে গাড়ি চলাচল দেখতে পায় অনেক দূর দূরান্ত থেকে মানুষজন এই সড়কে আসে কারন কি এই সড়কে মানুষজনের এক্সিডেন্ট এবং বিভিন্ন দুর্যোগ কম হয়
রাতের চাঁদ দেখতে খুব সুন্দর লাগে কারণ বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ধরনের চাঁদ ওঠে পূর্ণিমাতে এক  এক রকমের চাঁদ ওঠে এই পরিবেশে এত সুন্দর লাগে যে হালকা হালকা মেঘ ময় যখন হয় তখন চ্যাট গুলো আমরা দেখতে পাই না আমরা জানি যে বিভিন্ন ধরনের আমাবস্য এবং মেঘের ব্যবসায়ীরা এই চাঁদ দেখার উপর এ বিভিন্ন ধরনের কাজ করে থাকেন এবং বিভিন্ন অনুষ্ঠানের জন্য মুসলমান সম্প্রদায়ের মানুষেরা চাঁদ দেখার জন্য খুব আকর্ষনীয় হয়ে পড়ে রোজার ঈদ এবং কোরবানির ঈদের সময় মানুষের সব সময় আকাশের দিকে তাকিয়ে থাকি কখন চাঁদ উঠবে এবং তার পরের দিন আনন্দতে বিভিন্ন ধরনের অনুষ্ঠান পালন করা হবে তার ভিতরে ঈদের নামাজ পড়া প্রতিবছরের ন্যায় এই দিনটা খুব সুন্দরভাবে আকর্ষণীয় ভাবে পালন করি এবং খুব মজাদার একটি দিন থাকে এরা রাত্রেবেলা এই পরিবেশে সন্ধ্যার পর থেকে মানুষজন আকর্ষণীয় হয়ে পড়ে এই দিনটার জন্য রাতের বেলা পরিবারের সাথে একসাথে দাঁড়িয়ে ছাদের উপরে বসে অথবা রাস্তার ধারে দাঁড়িয়ে চাঁদ দেখার মজাটাই আলাদা
একজন ফুটপাত ব্যবসায়ী তিনি প্রতিনিয়ত বিভিন্ন দোকানে দোকানে অথবা বিভিন্ন বাজারে বাজারে ফুটপাতে বিভিন্ন প্রকারের জামা-প্যান্টিসহ শাড়ি কাপড় অনেক কিছু বিক্রি করে থাকেন এসব দোকান থেকে মানুষজন কম দামে বিভিন্ন প্রকার বিভিন্ন ধরনের সুতি কাপড় কিনতে পারে একটু কম দামে এজন্য অনেক জায়গা থেকে মানুষজন গরীব মানুষেরা এখানে বেশিরভাগ সময় মালামাল কিনে থাকে আমাদের সমাজে যারা ভ্যানচালকের গুলো বেশি পছন্দ করে কারণ তাদের সারাদিন যা রোজগার করে থাকেন সেই টাকা দিয়ে সংসার চালায় এবং বাদ বাকি যা কিছু টাকা থাকে তা দিয়ে ভালো কোন কিছু হয়না এইজন্য তারা খুব সুন্দর ভাবে এধরনের দোকান থেকে মালামাল কেনে এ ব্যবসায়ী অনেক গরীব একজন মানুষ তিনি গরীব মানুষ হওয়ার কারণে তিনি খুব সুন্দর ভাবে মানুষের সেবা করে যান এইভাবে কারণ কিনার টাকা নেই টাকা থাকলে তিনি আজ ফুটপাতে মালামাল ব্যস্ত না তুমি অনেক বড় দোকান দার সমর্থনে এজন্য তিনি আছেই ফুটপাতে বিভিন্ন প্রকার বিক্রি করে থাকে
ছবিতে আমি দেখতে পাচ্ছি খুব সুন্দর একটি কাঁচামালে দোকানে দোকানে সকল প্রকার নিজের মত কাঁচা মালামাল পাওয়া যায় যেখানে আপনি দেখতে পাবেন খুব সুন্দর ভাবে অনেক দূর দূরান্ত থেকে কাঁচামাল নিয়ে আসার পরিবেশ এখানে আপনি পেয়ে যাবেন সকল প্রকার কাঁচামাল দোকানদার সবসময় দোকানটিতে পরিষ্কার করে রাখেন সকল প্রকার মালামাল অনেক দূর দূরান্ত থেকে নিয়ে আসেন সাতক্ষীরা জেলা হাজারের উপরে ওই দোকানটি অবস্থিত উত্তরাঞ্চলের বিভিন্ন জায়গা থেকে এখানে লাউ কুমড়া আর অনেক সময় শীতকালীন বিভিন্ন শাকসবজি নিয়ে আসেনি ব্যবসায়ী অনেক বড় শরীরকে দোকান সব সময় দোকানে খরিদ্দার এর পরিপূর্ণ থাকে এখানে বাকিত মালামাল দেওয়া হয় রাত্রে বেশি দোকান খোলা থাকে
দৃশ্যে আপনারা দেখতে পাচ্ছেন সুন্দর মুদির দোকান এই মালামাল পরিপূর্ণ এখানে রান্না নিত্য প্রয়োজনীয় মালামাল পাওয়া যায় দোকান ব্যবসায়ী অনেক ভালো একজন মানুষ তিনি নিত্যনতুন অনি দূর-দূরান্ত থেকে গাড়িতে করে মালামাল নিয়ে আসেন এবং সকল প্রকার বেতনভুক্ত ভালো ভালো বিক্রি করে থাকেন এই ব্যবসায়ী তার এই টাকা দিয়ে খুব সুন্দরভাবে বাড়িতে 5 জনের সংসার চালায় এবং ছেলেমেয়েদের লেখাপড়া শেখায় পোশাক-আশাকের ভালো একজন মানুষ সব সময় দিন সততার সাথে ব্যবসা করেন বলে দীর্ঘদিন যাবত সাতক্ষীরা শহরের উপরে দোকান পাশে কে কে আছে দোকানে পাইকারি এবং খুচরা মালামাল বিক্রি করা হয় এখান থেকে বিভিন্ন গ্রাম অঞ্চলের মানুষের মালামাল কিনে নিয়ে যায় বিভিন্ন বড় বড় অনুষ্ঠানের এখানে আপনি নিত্যপ্রয়োজনীয় মুদি মালামাল খুব সুন্দর ভাবে কিনতে পারবেন
ছবিতে আমরা  টিফিন বক্সে দেখতে পাচ্ছি বাচ্চাদের খুব সুন্দর সুন্দর কেক এইগুলো খুব সুন্দর ভাবে তৈরি করা হয় ভেজালমুক্ত ভাবে কেকের দোকান টি আমাদের সাতক্ষীরা জেলার সরকারি কলেজের পাশে এবং সরকারি কলেজের পাশে পল্লীমঙ্গল স্কুল এর  পাশে মোদি দোকানের মালামাল বিক্রয় করা হয় বিভিন্ন প্রকার কেক-বিস্কুট আইসক্রিম সহ সকল প্রকার মালামাল বিক্রয় করা হয় এখানে একটি কথায় সবাই সামনে রাখে যে এটাই স্কুল এবং খুব সুন্দর ভাবে স্কুলের ছাত্র ছোট ছোট বাচ্চারা এধরনের খাবার খেয়ে থাকে কেক অনেক পছন্দের একটি খাবার কারণ এটি খুব সুন্দর ভাবে ভেজালমুক্ত ভাবে তৈরি করা হয় এবং প্যাকিং করা এবং বিভিন্ন প্রকার কেবিনের ভিতরে রেখে রেখে বিক্রি করা হয় সব সময় এই কলেজের ধারা এবং ইস্কুলের ধারায় পুলিশের ঘোরাঘুরি করে সকল প্রকার নিরাপত্তা বাহিনীর কাছে থাকে বলে সকল প্রকার ভেজালমুক্ত মালামাল এই দোকানে দোকানে রেখে থাকেন ফ্রিজের ভিতরে সকল প্রকার আইসক্রিম আপনি এখানে পেয়ে যাবেন যেগুলো খেতে খুব সুন্দর সুস্বাদু এখান থেকে মালামাল কিনলে সেগুলো ভেজালমুক্ত হবে
সাতক্ষীরা জেলার ঐতিহ্যবাহী লেক ভিউ পার্ক এখানে খুব সুন্দর ভাবে আপনি খাওয়া-দাওয়া করতে পারবেন ঘুরতে পারবেন অনেক কিছু দেখতে পারবেন খুব সুন্দর দেখার পরিবেশও মনমুগ্ধকর দৃশ্য অনেক দূর দূরান্ত থেকে এখানে পিকনিক করতে আসা মানুষজন খুব সুন্দর এবং সবসময় এখানে মানবদেহে পরিপূর্ণ থাকে বিভিন্ন প্রকার খাওয়া-দাওয়ার ভিতর অন্যতম কফি বিভিন্ন প্রকার কোম্পানির সকল প্রকার খাবারের পাশাপাশি থাকার ব্যবস্থা রয়েছে এখানে পাঁচ তলা একটি হোটেল রয়েছে যেখানে মানুষ জন খুব সুন্দর ভাবে অনেক দেশ থেকে এসে লেকভিউ পার্কে খুব সুন্দর ভাবে তারা প্রমাণ করতে পারেন সাতক্ষীরা জেলার ঐতিহ্যবাহী পার্ক সবসময়ই লাইটিং পরিপূর্ণ থাকে রাতের বিভিন্ন জায়গা থেকে মানুষজন এই পরিবেশে উপভোগ করা যায় এ পার্কের ভিতরে কোন ধরনের চিকিৎসা এটিকেট মুক্তি পার্কে দেখব খুব সুন্দর লাগে রাত্রেবেলা পরিবেশে বিভিন্ন ধরনের লাইটিং এবং সুন্দরভাবে আলোকিত হয়ে থাকে
রাত্রের এই দৃষ্টি আমি আপনাদেরকে দেখাবো ঢাকা শেরেবাংলা স্টেডিয়াম থেকে এখানকার পরিবেশটি খুব সুন্দর লাগছে প্রতিবছরের ন্যায় এখানে বিভিন্ন ধরনের অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয় তার ভিতরে অন্যতম খেলাধুলা বিশ্বকাপ খেলার সময় বিভিন্ন ধরনের লাইটিং করা হয় আরো অনেক ধরনের জাতীয় উৎসবের গান হয় সেখানে এ ধরনের অনুষ্ঠান হয় এ বছর খুব সুন্দরভাবে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের উপলক্ষে জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে খুব সুন্দর আয়োজন করা হয়েছিল 100 বছর উপলক্ষে এই অনুষ্ঠানে প্রায় কয়েক কোটি টাকা খরচ করেছে বাংলাদেশের সরকার সেখান থেকে এই ছবিটি তোলা খুব সুন্দর পরিবেশ মনমুগ্ধকর দেখতে অনেক দূর দূরান্ত থেকে বিভিন্ন প্রকার লাইটিং নিচেই পরিব্যক্তি দেখতে বিভিন্ন জেলা থেকে বিভিন্ন ধরনের বড় বড় মানুষেরা এখানে এসেছে এ ধরণের পরিবেশের অনেক দূর থেকে মানুষজন এখানে এসেছে
দৃশ্য আপনাদের আমি খুব সুন্দর ভাবে দেখাতে পারবে একটি ঐতিহ্যবাহী জায়গা যেখানে খুব সুন্দর ভাবে বিভিন্ন প্রকার কাপড়ের ব্যাগ তৈরি করা হয় অনেক সুন্দর একটি মেশিন কারেন্টের দ্বারা খুব সুন্দর ভাবে হাজার হাজার প্যাকেট তৈরি করা হয় এইখানেই খুব সুন্দর হবে অনেক দূর দূরান্ত থেকে এখানে কাজগুলো করার জন্য বিভিন্ন কোম্পানির মাল আমার এখান থেকে পাকিস্তানে পাঠানো হয় এবং বৈজ্ঞানিক নিয়ে হাজার হাজার প্যাকিং করা হয় দিনের ভিতরে কিভাবে তৈরি করা হয় খুলনা জেলার ঐতিহ্যবাহী শিরোমণি বাজারের উপরেই প্যাকিংয়ের হাউসটি তৈরি করা এখানে সবসময় মানবদেহে পরিমাণে থাকে প্রায় 50 জন কারখানায় কাজ করে থাকেন কারখানাটি অনেক বড়োসড়ো সব সময় পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করা থাকে এবং সকল প্রকার উন্নত মালামাল এখান থেকে বানানো হয় খুব সুন্দর ভাবে এটি বাইরে  জেলায় পাঠানো হয়  এখানে কয়েকটি মেশিন রয়েছে অভিজ্ঞ মানুষজন এই মেশিনগুলো চালিয়ে বিভিন্ন ধরনের কাপড় তৈরি করে থাকেন তার ভেতরেও টিস্যু কাপড় দিয়ে যেগুলো তৈরি করেন অনেক আরামদায়ক
সাতক্ষীরা জেলার ঐতিহ্যবাহী  ধুলিহর গ্রামের পাশে একটি জায়গায় খুব সুন্দর মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে এখানে প্রধান বক্তা হিসেবে তাফসীর পেশ করেছেন আব্দুল কাদের জিহাদী ঢাকা তিনি কোরআনের একজন আলেম খুব সুন্দর ভাবে তিনি কোরআনের কথা বলে থাকেন অনেক দূর দূরান্ত তিনি অফ করতে যান তিনি একজন খুব সুন্দর ভাবে মানুষকে বোঝাতে পারেন এবং তার অনেক টাকা দিয়েই মাহফিলের ময়দা নিয়ে আসা হয় আফিলিয়েট সম্পন্ন পেন্সিলের ভিতরে হাজারো মানুষের ভিতরে এই বক্তা খুব তাফসীর পেশ করেছেন খুব সুন্দরভাবে মাহফিলের অনুষ্ঠানের প্রতি জায়গা হয় এবং প্রতিবাদস্বরূপ এইখানে এই মাহফিলের আয়োজন করা হয় এলাকার লোক ইসলাম প্রিয় মানুষ বাংলাদেশের লোক রাজধানী প্রশ্ন বিভাগ মুসলমান তারা সবসময় ইসলামের পথে চলেন আল কোরআনের পথে চলেন খুব সুন্দর ভাবে ইসলামের পথে জীবন যাপন করতে পেলেও কালে শান্তি পরকালে মুক্তির ব্যবস্থা করবেন
ভাই ভাই মিষ্টান্ন ভান্ডার দেখতে পাচ্ছি আমাদের ধুলিয়ার বাজারের উপর অবস্থিত খুব সুন্দর ভাবে এই বাজারে বিভিন্ন ধরনের মিষ্টান্ন ভান্ডার রয়েছে তার ভিতরে একটি অন্যতম কারণ এবং সকল প্রকার মিষ্টি এখানে আপনি পাইকারি খুচরা মূল্যে পেয়ে যাবেন সকল প্রকার ভেজালমুক্ত চিনি দুধ আরো অনেক কিছু দিয়ে এই মিশ্রণে তৈরি করা হয় অনেক দূর দূরান্ত থেকে বিভিন্ন জায়গা থেকে অর্ডার দিয়ে থাকেনি রেস্টুরেন্টে খুব সুন্দর যে ভরে রেস্টুডেন্ট সবসময় মালামালে পরিপূর্ণ করে রেস্টুরেন্ট ব্যবসায়ী দীর্ঘদিন যাবৎ ধুলিয়ার বাজারের উপরেই ব্যবসায়ী নামকরণের সাথে এই দোকানটি চালিয়ে যাচ্ছেন অনেক সৌন্দর্য ঘেরা পরিবেশ সবসময় এখানে অনেক দূর দূরান্ত থেকে মানুষজন দুপুরের খাবার রাতের খাবার এবং সকালের খাবার নিয়ে যান এবং এখন কি এখানে খাওয়া-দাওয়ার পরিবেশে রয়েছে সকালের পরোটা আরো মিষ্টি দলটা পাশাপাশি খিচুড়ি রান্নার ব্যবস্থা রয়েছে রেস্টুরেন্টে
খুব সুন্দর একটি জন্মদিনের অনুষ্ঠান যেখানে অনেক দূর দূরান্ত থেকে অতিথি এবং অনেক দূর দূরান্ত থেকে মানুষজন এসেছে এখানে প্রধান আকর্ষণ হলো জন্মদিনের কেক খাবে কেক একটু ছোট বাচ্চার জন্ম গুলোকে কাটা হবে এখানে আমাদের সাতক্ষীরা জেলার এসপি  যেখানে বিভিন্ন পর্যায়ের বিভিন্ন অনুষ্ঠানে প্রতি বছরের ন্যায় এ অনুষ্ঠানটি দিনে অনেক টাকা খরচ করে থাকেন এবং সব সময় তিনি পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন ভাবে উন্নত রেস্টুরেন্টে আয়োজন করে থাকেন কিন্তু এবার তিনি তাঁর বাড়িতে খুব সুন্দরভাবে আয়োজন করেছেন এখানে বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার মানুষের সাথে বিয়ে দিবি আছে এবং বিভিন্ন প্রকার সিআইডি সাতক্ষীরা জেলার প্রায় করেন এবং তার বাড়িতে আত্মীয় স্বজনের এখানে এসেছে এবং মনিটরের খাওয়া-দাওয়া একটু পরেই হবে
দৃশ্যে দেখতে পাচ্ছেন সুন্দর একটি কাঁচামালের দোকান এখানে আপনি পেয়ে যাবেন টমেটা কলা বেগুন পটল সকল প্রকার শীতকালীন শাকসবজি আরো অনেক কিছু পেয়ে যাবেন শীতকালীন যেসব উন্নত বাংলাদেশের শাকসবজি হচ্ছে প্রতিনিয়ত ব্যবসায়ীরা অনেক দূর দূরান্ত থেকে এনে সাতক্ষীরা জেলায় দোকানে বিক্রি করে থাকেন সবসময় মানে মানে পরিপূর্ণ করা থাকে দোকানটিতে এবং খুব জনপ্রিয় একটি দোকানের বাকী দোকানের মালামাল বিক্রি করা হয় দোকান কি আপনি ভেজালমুক্ত এবং কর্মচারী রয়েছে তারা খুব সুন্দর ভাবে মালামাল নিয়ে এসে পানি দিয়ে পরিষ্কার করে তারপরে দোকানে তোলেন এবং বিক্রি করে থাকেন অনেক পরিচিত একটি দোকানে রাত্রে ব্যাপী লাইটিং দিয়ে ব্যবসায়ী মালামাল বিক্রি করে থাকেন ইনি দক্ষিণাঞ্চলে সাতক্ষীরা শহরের উপরে অবস্থিত
ছবিতে আমরা দেখতে পাবেন খুব সুন্দর ভাবে খুলনা জেলার ঐতিহ্যবাহী পার্ক খুলনা জেলা শহরের উপরে গিলিতলা এই পার্কে সকল প্রকার সব জায়গা থেকে মানুষজন দেখতে আসে কারণ এখানে দেখতে পাচ্ছেন প্রায় পাঁচ তলা সমালোচক বিভিন্ন প্রকার রং করার সুন্দরভাবে গড়ে তোলা পার্কের নাম লেখা এর ভিতর ঘোরাঘুরি করা বিভিন্ন চিড়িয়াখানা জঙ্গল পশু-পাখি পাখি তার উপরে বিভিন্ন ধরনের গাছপালা সুন্দর যোগ করতে পারেন পিকনিক কর্নার রেস্টুরেন্ট সকলকে ছেড়ে এখানে খুব মনমুগ্ধকর পরিবেশ প্রাকৃতিক দৃশ্য অনেক দলের দোকান রয়েছে যেখানে বিভিন্ন প্রকার পারা যায় তাজমহল ক্রিকেট বল আরও অনেক কিছু সবসময় মনে পরে কথা থাকে এখানকার এই দোকানগুলোতে এবং এখানে পার্কে সবসময় লোকজন আসে বিভিন্ন জায়গা থেকে
দৃশ্যে আপনাদের খুব সুন্দরভাবে আমি একই ঐতিহ্যবাহী সাতক্ষীরা জেলার রাজ্জাক পার্কের মেলার বিভিন্ন প্রকার বাজারের দৃশ্য দেখাবো খুব সুন্দর ভাবে এখানে সকল প্রকার দোকানপাট এবং রাত্রেবেলা পরিবেশটি অনেক সুন্দর লাগে হাজার হাজার মানুষ এই বাজারে অপেক্ষা করে বিভিন্ন প্রকার মালামাল কেনার জন্য প্রতি বছরের ন্যায় এ রাজ্জাক পার্কে বিভিন্ন প্রকার অনুষ্ঠান হয় তার ভিতরে অন্যতম পুকুর মেলা এই মেলায় অনেক দূর দূরান্ত থেকে মানুষজন আছে এবং তারা সেখানে বেচাকেনার করে বিভিন্ন দোকানপাট এবং অনেক জায়গা থেকে মানুষজন এখানে এই মেলা উপভোগ করতে আসে এখানে ওঠে মুদি দোকান মে খাবারের দোকান বিভিন্ন প্রকার মোবাইল শপিং সেন্টার এবং আরো অনেক ধরনের মালামাল এইসব দোকানে বিক্রি করা হয় মেলায় আরো আপনি দেখতে পাবেন বিভিন্ন প্রকার খেলাধুলা করার স্থান যেমন বিভিন্ন ধরনের কেরাম খেলা লুডু খেলা নৌকা বাইচ খেলা ট্রেন স্টেশনে চলাচল শুরু হয় বাচ্চারা এধরনের খেলাধুলা করতে পছন্দ করে আপনি ছবিতে আরও দেখতে পাচ্ছেন যে বিভিন্ন শ্রেণীর মানুষের এখানে এসেছে এই ধরনের পরিবেশটি দেখতে এবং বিভিন্ন ধরনের অনুষ্ঠান দেখতে